www.agrovisionbd24.com
শিরোনাম:

জলবায়ু পরিবর্তনে বিশ্বে প্রভাব

 এস এ    [ ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০, বুধবার, ৫:৩১   ক্যাম্পাস বিভাগ]



মানবসৃষ্ট কারণ ও প্রাকৃতিক কারণে জলবায়ু পরিবর্তিত হচ্ছে। জলবায়ুর এই পরিবর্তনের প্রভাব উদ্ভিদ ও প্রাণিকূলের উপর প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে পরিলক্ষিত হচ্ছে।

কৃষিক্ষেত্রঃ প্রত্যেক ফসলের নির্দিষ্ট জীবনকাল আছে এবং ফুল-ফল ধারণের নির্দিষ্ট সময় আছে। উদ্ভিদের ফুল ধারণের ওপর আবহাওয়ার উপাদানের (তাপমাত্রা, বৃষ্টিপাত, আর্দ্রতা উত্যাদি) প্রভাব রয়েছে। অনুকূল আবহাওয়ায় উদ্ভিদ সুন্দরভাবে বেড়ে উঠে, ভালো ফলন দেয়। বিশ্বে তাপমাত্রা বৃদ্ধির ফলে বরফ গলে সমুদ্রের উচ্চতা বৃদ্ধি পাচ্ছে । ফলে উপকূলীয় এলাকার কৃষি জমিতে প্লাবনে লবণাক্ততা বৃদ্ধি পাচ্ছে। বর্তমানে বৈশ্বিক আবহাওয়ার পরিবর্তন ফসলের ওপর দীর্ঘমেয়াদি প্রভাব ফেলতে পারে।

মৎস্যক্ষেত্র: মাছের জীবনধারণের জন্য পানির নির্দিষ্ট তাপমাত্রা প্রয়োজন ও পানির নির্দিষ্ট চক্র প্রয়োজন। বৈশ্বিক তাপমাত্রা বৃদ্ধির ফলে ও নদী ভরাট হওয়ায় সমুদ্রের লবনজল উঠে আসার কারণে মাছের বসবাসের অনুকূল পরিবেশ নষ্ট হচ্ছে।

অভিবাসিঃ সমুদ্রের উপকূলবর্তী মানুষের বাড়িঘর বিলীন হচ্ছে, নদী ভাঙনে মানুষ হারাচ্ছে তাদের বসতবাড়ি ফলে মানুষ দেশের অভ্যন্তর কিংবা অন্যদেশে পাড়ি জমাচ্ছে । সম্প্রতি মালদ্বীপের অবস্থা ভয়াবহ খারাপ, দেশটি কখন যে সমুদ্রের অভ্যন্তরে ডুবে যায় তা নিয়ে শঙ্কায় আছি।

রোগবালাই: আবহাওয়া পরিবর্তনে ফসল ও উদ্ভিদের নতুন নতুন রোগের আবির্ভাব হচ্ছে। ফসলে বিদ্যমান পতঙ্গগুলো আরো শক্তিশালী হচ্ছে। বাড়ছে মানুষের রোগবালাই।

বন্যা ও খরা: নদীগুলো মরে যাচ্ছে। মানুষ নদী ভরাট করছে। তাছাড়া অধিক পলি জমে নদীর পানিধারণ ক্ষমতা কমছে । ফলে অল্প প্লাবনে চারপাশ ডুবে যাচ্ছে। ক্ষতি হচ্ছে ফসল ও বসতবাড়ি। ভূগর্ভস্থ পানি ব্যবহারের ফলে পানির স্তর আরো নিচে নেমে যাচ্ছে, দেহের বিভিন্ন স্থানে মরুভূমির বৈশিষ্ট্য পরিলক্ষিত হচ্ছে। সবই আবহাওয়ার পরিবর্তনের ফল।

টর্নেডো, সাইক্লোন: বৈশ্বিক আবহাওয়ার পরিবর্তনে, বিশ্ববাসী এখন নতুন নতুন বিপর্যয়ের মুখোমুখি হচ্ছে। কিছুদিন আগে বিশ্ববাসী দেখেছে ঘূর্ণিঝড় মোরার তান্ডবলীলা। বাংলাদেশের মানুষ দেখেছে সিডরের তান্ডবলীলা। ভবিষ্যতে পরিবেশের পরিবর্তনে এমন বিপর্যয় আরো বাড়বে।

পরিবেশের পরিবর্তন কোনো একক দেহের বিষয় নয়। এক দেশের পরিবেশ বিপর্যয় পাশের দেশে প্রভাব পেলে, এর কোন সীমা পরিসীমা থাকেনা। বাংলাদেশ যেহেতু কৃষিভিত্তিক দেশ। সুতরাং আমাদের সচেতন হতে হবে যাতে করে আমাদের কৃষির ওপর কোন বিপর্যয় না নেমে আসে। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার প্রত্যয়ে এগিয়ে যাচ্ছে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তাঁরই নির্দেশে দেশের নদীশাসন বন্ধ হচ্ছে। সম্প্রতি নদী উদ্ধারে সরকার বেশ তৎপর। নদী খনন চলছে। আশা করা যায় নদীগুলো সঠিকভাবে খনন হলে বর্ষা মৌসুমে অনেক পানি ধরে রাখা সম্ভব হবে যা কৃষিকাজে সহযোগিতা করবে। পরিবেশ রক্ষায় সবচেয়ে কার্যকর উদ্যোগ হলো বৃক্ষরোপণ। মুজিববর্ষে সরকার ১ কোটি বৃক্ষরোপণের যে ঘোষণা দিয়েছে তা সাধুবাদ প্রাপ্য। পরিবেশ রক্ষায় সরকার ব-দ্বীপ মহাপরিকল্পনা হাতে নিয়েছে। এই পরিকল্পনা সঠিক বাস্তবায়িত হলে আমাদের দেশ পরিবেশ রক্ষায় বেশ গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠবে। বিশ্বের উন্নত রাষ্ট্রসমূহ সবচেয়ে বেশি কার্বন ডাইঅক্সাইড নিঃসরণ করছে অথচ বেশি ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে ছোট দেশগুলো।

আশা করা যায় প্যারিস জলবায়ুর নির্দেশনামা যদি বাস্তবায়িত হয় তবে একদিন বিশ্বেও পরিবেশ আবার নির্মল হবে।


লেখক
দীপক চন্দ্র দাস
পরিবেশ কর্মী, ময়মনসিংহ
মোবাইল: ০১৭৭৬ ২১৬৫৪৪




 এ বিভাগের আরও


 নারী ও মেয়েদের প্রতি সহিংসতার প্রতিবাদে ভার্চুয়াল সভা


 বাকৃবিতে অনলাইন ক্লাস চালুতে পদক্ষেপ নেই, শিক্ষার্থীদের ক্ষোভ


 সভাপতি এমদাদুল, সম্পাদক মামুন


 ‘হাল্ট প্রাইজ’ প্রতিযোগিতার টিম রেজিষ্ট্রেশন শুরু ২ অক্টোবর


 সাগরে নেমে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রের মৃত্যু


 বাকৃবি গণতান্ত্রিক শিক্ষক ফোরামের নতুন কমিটি


 জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে বাকৃবির প্রাক্তন শিক্ষার্থী


 আহ্বায়ক ড. আহসান, সদস্য সচিব ড.  এহসানুর


 মুজিববর্ষ উপলক্ষে বাকৃবিসাসের ফিচার প্রদর্শনী


 অনাচার ও নিপীড়ন বিরোধী মঞ্চের সাথে হাবিপ্রবির প্রক্টরিয়াল বডির আলোচনা


 বাকৃবিতে মশার উপদ্রবে অতিষ্ট শিক্ষার্থীরা


 বৃত্তি পেল বৃহত্তর কুমিল্লা সমিতির ২৫ শিক্ষার্থী


 বাকৃবিতে বহিরাগতদের সাথে শিক্ষার্থীদের হাতাহাতি


 ওমরাহ পালনে গিয়ে বাকৃবির ৪ শিক্ষার্থী নিখোঁজ


 সিকৃবির কীটতত্ত্ব বিভাগের ছাত্রের আন্তর্জাতিক পুরষ্কার লাভ





সম্পাদক ডাঃ মোঃ মোছাব্বির হোসেন
ঠিকানা: বাসা-১৪, রোড- ৭/১, ব্লক-এইচ, বনশ্রী, ঢাকা
মোবাইল: ০১৮২৫ ৪৭৯২৫৮
agrovisionbd24@gmail.com

© agroisionbd24.com 2019